সিলেটের এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

0 ৮৩

সিলেটের এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে (বরখাস্তকৃত) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়িতে পুলিশের নির্যাতনে নিহত রায়হান আহমদ হত্যার নেপথ্যে থাকা এসআই আকবর হোসেন ভূঁইয়াকে  সোমবার (৯ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পুলিশের একটি দল তাকে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে গ্রেফতার করে। ২৮ দিনের মাথায় কানাইঘাটের ডনা সীমান্ত এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি বলেন, “পুলিশ আমাদের বারবার বিভিন্ন সময়সীমা বেঁধে দিলেও শেষ পর্যন্ত কাউকেই আটক করতে পারেনি। এর আগে তারা নিজেরাই আমার ছেলের ময়নাতদন্ত করে রিপোর্ট দিয়েছিল। একবার বললো দুর্ঘটনা, একবার বললো স্ট্রোক করেছে, আবার একবার বললো গণপিটুনিতে মারা গেছে। পরে পিবিআইয়ের দ্বিতীয় দফা ময়নাতদন্তে উঠে এলো যে তার শরীরে আঘাতের চিহ্ন ছিল।”

রায়হানের চাচা ও রায়হানের মা সালমা বেগমের বর্তমান স্বামী হাবিবুল্লাহ সংবাদ সম্মেলনে বলেন, সিলেট মেট্রোপলিটনের পুলিশ কমিশনার তাদের বাসায় এসে দুইদিনের মধ্যে এই ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিয়েছিলেন। দুইদিন পার হয়ে যাওয়ার পরও তদন্তের কোনো অগ্রগতি না হওয়ায় ৭২ ঘণ্টার আলটিমেটাম দেয় তারা।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন সিলেট পিবিআই’র পুলিশ সুপার খালেকুজ্জামান।  তিনি জানান, পিবিআই একটি দল কানাইঘাট এলাকায় যাচ্ছে।

জানা গেছে, আকবর কানাইঘাটের ডনা সীমান্তের ওপারে খাসিয়া পল্লিতে বসবাস করছিলেন। ফেসবুকে আপলোডকৃত এক ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, স্থানীয় খাসিয়া সম্প্রদায়ের মানুষের হাতে প্রথমে ধরা পড়েন আকবর। এসময় নিজেকে বাঁচাতে কেঁদে ফেলেন আকবর এবং তাকে ছেড়ে অনুনয় করতে থাকেন। এসময় জনতা তাকে রশি দিয়ে বাঁধেন এবং পরে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

ঐ ঘটনার তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন, পিবিআই’কে।

মি. হাবিবুল্লাহ বলেন, পিবিআইয়ের তদন্তে এখন পর্যন্ত সন্তুষ্ট তারা।

উল্লেখ্য, পুলিশ হেফাজতে ১১ অক্টোবর নগরীর আখালিয়া এলাকার যুবক রায়হান আহমদ মারা যাওয়ার ঘটনায় এসএমপির এসআই আকবরসহ ৪ জনকে সাময়িক বহিস্কার ও ৩ জনকে প্রত্যাহার করা হয়। বরখাস্তদের মধ্যে রয়েছেন কনস্টেবল হারুনুর রশিদ, তৌহিদ ও টিটু দাস। প্রত্যাহার হওয়া তিনজন হলেন- এএসআই আশেক এলাহী, এএসআই কুতুব আলী ও কনস্টেবল সজিব হোসেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন সিলেট জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার লুৎফর রহমান। তিনি জানান, ভারতে পালিয়ে যাওয়ার পথে কানাইঘাটের ডনা সীমান্ত থেকে জেলা পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

0 0 vote
Article Rating
আরও পড়ুন
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x