নবীনগরে পা কেটে নেয়া সেই মোবারকের মৃত্যু

0 ২১১

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের থানাকান্দি গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষের সময় পা কেটা নেয়া সেই মোবারক মিয়া (৪৫) মারা গেছেন।

ঘটনার তিনদিন পর মঙ্গলবার রাত দেড়টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। নিহত মোবারক থানাকান্দি গ্রামের মধু মিয়ার ছেলে। নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রনজিত রায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জিল্লুর রহমানের সঙ্গে একই ইউনিয়নের থানাকান্দি গ্রামের আওয়ামী লীগ নেতা আবু কাউসার মোল্লার দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে।

এসব বিরোধের জের ধরে গত রবিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উভয় পক্ষ দেশিয় অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে থানাকান্দি গ্রামে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। দফায় দফায় হওয়া সংঘর্ষে তিন পুলিশ সদস্যসহ উভয়পক্ষের কমপক্ষে ৩০ জন আহত হন। সংঘর্ষ চলাকালে চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমানের পক্ষের মোবারক মিয়া (৪৫) নামে এক যুবকের পা কেটে নিয়ে যায় কাউছার মোল্লার দলের লোকজন। পরে তারা কাটা পা নিয়ে “জয় বাংলা” স্লোগানে এলাকায় মিছিল করে। সংঘর্ষের সময় দাঙ্গাবাজরা প্রতিপক্ষের ৭টি বাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাট করে। সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ দুই পক্ষের নেতা জিল্লুর রহমান ও আবু কাউসার মোল্লাসহ ৪৫ জনকে গ্রেফতার করেছে।

এ ঘটনায় নবীনগর থানার এস.আই মোজাম্মেল হোসেন বাদী হয়ে ১০৫জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ৭/৮শত লোককে আসামি করে থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

এদিকে ঘটনার গত মঙ্গলবার রাত দেড়টায় পা কেটে নেয়া মোবারক মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

নিহত মোবারক মিয়ার স্ত্রী সাবিয়া আক্তার সাংবাদিকদের জানান, মোবারক ঢাকায় রিকশা চালাতেন। করোনা পরিস্থিতির কারণে তিনি গ্রামের বাড়িতে এসেছিলেন। তিনি বলেন, গত রবিবার দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হলে তিনি নিজের ঘরে ঢুকে দরজা বন্ধ করে অবস্থান করছিলেন। গ্রামের কোনো ঝগড়া-দলাদলিতে জড়িত ছিলেন না। মৃত্যুর আগে তিনি তাকে কারা কুপিয়েছে তাদের নাম বলে যান। তার বক্তব্য মোবাইলে ভিডিও করে রেকর্ড করা হয়েছে।

0 0 vote
Article Rating
আরও পড়ুন
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x