মাদারীপুর এ দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে পুলিশ সহ ৩৮ জন আহত ।

0 ৬২

মাদারীপুরের রাজৈর এলাকার আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে উপজেলার বাজিতপুর ইউনিয়নের মাচ্চর গ্রামে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় পুলিশের এক এএসআইসহ কমপক্ষে ৩৮ জন আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৯ জনকে আটক করেছে। গতকাল শনিবার (১৭ অক্টোবর) বিকালে দুই গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়।

আহতদেরকে রাজৈর, মাদারীপুর ও ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে ৪ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১১ রাউন্ড ফাকা গুলিবর্ষণ করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আহত পুলিশরা হলেন, এএসআই এনায়েত হোসেন, কনস্টেবল আবুল খায়ের, বিপ্লব হোসেন, আবু সফুর। এছাড়া বাকি আহতরা হলেন, ফজলে খালাসীর ছেলে নান্নু খালাসী (৩৫), শাহজালাল খালাসীর ছেলে তুষার খালাসী (২১), আয়নাল খালাসীর ছেলে স্বপন খালাসী (১৮), শাহজাহান খালাসীর ছেলে সাজ্জাদ খালাসী (১৫) ও শান্ত খালাসী (১৫), কালাম খানের ছেলে সালাম খান (৩৫), হাবিব খানের স্ত্রী নাসিরুন বেগম (৫৫), মোরশেদ খানের ছেলে রশিদ খান (৪৫), ইদ্রিস খানের ছেলে সিরাজ খান, একতার খানের ছেলে অনিক খান (২০), কালাম খানের ছেলে শাহাদাৎ খান (৩২), মৃত মুজিবুর রহমানের ছেলে মনিরুজ্জামান (৩২), মনিরুজ্জামানের ছেলে কামরুজ্জামান (৪২), সিদ্দিক ঢালীর ছেলে বাবুল ঢালী (২৮), মোনজেদ খানের ছেলে আসাদ খান (২৯), শাহ আলম খানের স্ত্রী রাবেয়া বেগম (৩০), সামাদ মাতুব্বরের ছেলে কামরুল মাতুব্বর (৩০), লোকমান শেখের স্ত্রী ঝর্ণা বেগম (৩২), সবুজ খানের স্ত্রী সাবিনা বেগম (২৩)।

তাদের অধিকাংশের বাড়ি রাজৈর উপজেলার বাজিতপুর ইউনিয়নে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বাজিতপুর ইউনিয়নের মাচ্চর গ্রামের খাঁ এবং খালাসী বংশের মধ্যে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গতকাল শনিবার (১৭ অক্টোবর) বিকালে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এসময় বিবদমান দুই গ্রুপের সাথে এলাকার আরও কয়েকটি বংশের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপী চলা সংঘর্ষে পুলিশের ৪ সদস্যসহ কমপক্ষে ৩৮ জন আহত হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ১১ রাউন্ড ফাকা গুলিবর্ষণ করে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৯ জনকে আটক করেছে। আহতদেরকে রাজৈর হাসপাতাল, মাদারীপুর ও ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে ৪জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত রয়েছে।

মাদারীপুর পুলিশ সুপার মোঃ মাহবুব হাসান বলেন, দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ১১ রাউন্ড শর্টগানের গুলি বর্ষণ করে। পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত রয়েছে। দুই পক্ষের সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে রাজৈর থানার এক এএসআইসহ ৪ পুলিশ সদস্য আহত হওয়ার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ৮৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা সহস্রাধিক ব্যক্তিকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের

0 0 vote
Article Rating
আরও পড়ুন
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x