পুলিশের লাঠিচার্জে এবার আহত আবরারের ছোট ভাই

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের ছোট ভাই আবরার ফায়াজকে  মারধর করে পুলিশ। আজ বুধবার কুষ্টীয়ার কুমারখালী উপজেলার রায়ডাঙ্গা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এর আগে পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে রায়ডাঙ্গা গ্রামে যান বুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম।
পুলিশের লাঠিচার্জে এবার আহত আবরারের ছোট ভাইসেখানে ভিসি কে বাঁধা দেয় গ্রামবাসী। পরে এলাকাবাসীর সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়। এ সময় আবরারের ছোট ভাই ফায়াজ, তার ফুফাতো ভাইয়ের স্ত্রী ও আরও একজন নারী আহত হন। স্থানীয় সূত্র জানায় , বুয়েট ভিসি আবরারের কবর জিয়ারত ও পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যান। এতে তিনি কবর জিয়ারত করতে পারলেও আবরারের বাসায় ঢুকতে পারেন নি। আবরারের ভাই ও বাবার প্রশ্নবানে জর্জরিত হন উপাচার্য। তাদের জিজ্ঞাসা ছিল, উপাচার্য কেন ওই হত্যাকান্ডের পরপর সেখানে উপস্থিত হননি। এখন কেন এখানে এসেছেন?
এ অবস্থায় আবরারের বাড়িতে ঢোকার সময় উপচার্যকে বাঁধা দেয় গ্রামবাসী। আবরারের বাড়ি ঢোকার মুখে ভিসির গাড়ির সামনে শুয়ে পরেন নারীরা। পরে পুলিশ লাঠিচার্জ করলে আবরারের ছোট ভাই ফায়াজসহ পাঁচ জন আহত হন। রায়ডাঙ্গা গ্রামে গিয়ে আবরারের কবর জিয়ারত ও তার পরিবারের সঙ্গে দেখা করার কথা ছিল ভিসির। এ খবরে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুল পরিমাণ সদস্য মোতায়েন করা হয় । আবরারের বাড়ির পাশে ও কবরের আশপাশ এলাক্য অসংখ্য র‍্যাব ও পুলিশ অবস্থান নেয়।

Leave a Reply

avatar
1000
  Subscribe  
Notify of
WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com