শিমুলিয়া ঘাটে নেই গাড়ির চাপ, ৪ ফেরিতে পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার

0 ১৩৫

শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ী নৌরুটে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ কম। তার পরও লোকজন আসছেই। পণ্যবাহী ট্রাক ও জরুরি প্রয়োজনে থাকা গাড়ি পার করছে ফেরিগুলো। বর্তমানে নৌরুটে চারটি ফেরি চলাচল করলেও যেকোনো সময় ফেরি সংখ্যা কমিয়ে আনা হবে। এক দিন আগে এই নৌরুটে ঢাকামুখী যাত্রীদের বাড়তি চাপ থাকলেও বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। খুব ভোর থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত লোকজনের ভালো চাপ ছিল। তারা প্রাইভেট কার, মিশুক ও অটো রিক্সা দিয়ে গন্তবে চলে গেছে বলে নিশ্চিত করেছেন মাওয়া ঘাটের নৌ পুলিশ কর্মকর্তা।

সেনাবাহিনী ঘাটে অবস্থান নিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক পর্যায়ে রেখেছে। সোমবার সকাল থেকে ৩০-৪০টি মালবোঝাই ট্রাক লাইনে থাকতে দেখা গেছে। এমন চিত্র মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া ঘাটে। শিমুলিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক সাফায়েত আহম্মেদ জানান, বর্তমানে চারটি ফেরি চলাচল করছে শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ী নৌরুটে। কিন্তু যেকোনো সময় ফেরির সংখ্যা কমিয়ে আনা হবে।যাত্রীবাহী কোনো গাড়ি যাতে ঘাটে না আসে সেজন্য ঘাট এলাকায় সেনাবাহিনীর নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। যাত্রী ও যানবাহনের চাপ নেই। পণ্যবাহী ট্রাক ও জরুরি গাড়ির সংখ্যাও কম। কেউ যাতে অযথা ঘাটে ঘোরাফেরা না করে সেদিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে। গতকালের রবিবার থেকে সোমবার যাত্রীদের সেরকম উপস্থিতি নেই তবে ঘাটে গনপরিবহন না থাকায় কিছু যাত্রী আসা যাওয়া করছে তারা মিশুক ও বেটারি চালিত অটো রিক্সা দিয়ে গন্তব্যে যাচ্ছেন বলে জানান তিনি।

শিমুলিয়া নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সিরাজুল কবির ও মাওয়া ট্রাফিক পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক হেলাল উদ্দিন জানান সোমবার সকাল ১১টায় নয়াদিগন্তকে জানান, ভোর থেকে প্রচুর চাপ থাকলেও ১০টার পর থেকে তেমন যাত্রীদের চাপ নেই। ৩০-৪০টি মালবাহী ট্রাক লাইনে দাড়ানো রয়েছে। কিছু লোকজন এখনো পারাপার হচ্ছে। তবে গণপরিবহন যেহেতু বন্ধ সেইহেতু সকল ধরনের যাত্রী আসা যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে।

0 0 vote
Article Rating
আরও পড়ুন
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x