,
সংবাদ শিরোনাম :
» « দেখিয়ে দাও তুমি কেন এক নম্বর, সাকিবকে রোডস» « অবশেষে ধ্যান ভেঙে গুহা ছাড়লেন মোদি» « যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যে বেইজিংয়ে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী» « বাগেরহাটে বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা, নিহত ৫» « জ্যান্ত কবর দেয়া শিশুকে মাটি খুঁড়ে উদ্ধার করলো কুকুর» « রাজধানীতে পৃথক অভিযানে অজ্ঞানপার্টির ২৩ সদস্য আটক» « আয়ারল্যান্ডকে উড়িয়ে বাংলাদেশের ফাইনাল ‘প্রস্তুতি’» « ময়মনসিংহ মেডিক্যালের ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি, ফটকে তালা ঝুলিয়ে শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ» « দেশের পথে ওবায়দুল কাদের» « প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ১৭ অভিযুক্ত পাওয়া গেলো ছাত্রলীগের কমিটিতে

তিন ফিফটিতে টাইগারদের বিশাল জয়

 

গতকাল মঙ্গলবার ডাবলিনের ক্লনটার্ফ ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টসে জিতে আগে ব্যাটিং করে ২৬১ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টার্গেটে খেলতে নেমে দুর্দান্ত সূচনা আসে তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকারের ব্যাট থেকে। ডিপিএলের শেষ পর্বে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা ধরে রেখেছেন নিজের সেরাটা। তামিম-সৌম্য শুরুটা করে এসিছিলেন দুর্দান্ত আর সাকিব-মুশফিক শেষটা করে এসেছেন আরও দুর্দান্তভাবে।

তামিম-সৌম্য-সাকিব অর্ধশতক করেছেন। ৮০ ও ৭১ রানে আউট হয়ে ফিরে এসেছেন তামিম-সৌম্য। সাকিব ৬১ ও মুশফিক ৩২ রানে অপরাজিত ছিলেন। এককথায় আজ টাইগারদের টপ-অর্ডার ছিল দুর্দান্ত।

সৌম্য আজ তার সহজাত খেলাটাই খেলেছেন। ৬৮ বলে ৯ চার ও ১ ছয়ের মারে ৭৩ রান করেন এ বাঁহাতি হার্ডহিটার। তবে আরেকটু দেখেশুনে খেললে তিন অঙ্কের ঘরও ছুঁতে পারতেন ফর্মে থাকা এ ব্যাটসম্যান। ১১৬ বলে ৭টি চারের মারে ৮০ রানের ইনিংস খেলেন তামিম ইকবাল। তার ইনিংসটি ছিল নিখুঁত। কিন্তু আক্ষেপ ২০ রানের জন্য পাননি সেঞ্চুরির দেখা।

অন্যদিকে মাঠে ফিরেই দুর্দান্ত সাকিব আল হাসান। ইনজুরির জন্য মিস করেছেন নিউজিল্যান্ড সফর। এ বছর লাল সবুজের জার্সিতে প্রথম খেলতে নেমেই ব্যাটিং-বোলিংয়ে নিজের সেরাটা। কৃপণ বোলিংয়ের পর ব্যাট হাতে ৬১ বলে ৬১ রান করে দলকে জিতেইয়ে মাঠ ছেড়েছেন। ইনিংসটি সাজিয়েছেন ৩টি চার ও ২টি ছয়ের মারে। সাকিবকে সঙ্গ দিয়েছিলেন মুশফিক। ২৫ বলে ২টি করে চার ও ছয়ের মারে মুশফিক ৩২ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেছেন।

শাই হোপের কাঁধে ভর করে ২৬১ রান করেন ক্যারিবীয়রা। তিনি ১০৯ রান করেন। এ ছাড়া রোস্টন চেজ করেন ৫১ রান। শুরুর দিকে উইন্ডিজদের রাজত্ব থাকলেও শেষ দিকে দুর্দান্ত বোলিং করে ম্যাচ নিজেদের দিকে নিয়ে এসেছেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা।

হোপকে আটকাতে পারলে এই ম্যাচের গল্প অন্যরকম হতে পারতো। হোপ-রোস্টন চেজ ছাড়া বলার মতো কেউ রান করতে পারেনি। কার্টার ১১ ও নার্স করেন ১৯ রান।আজকের ম্যাচে টাইগারদের মধ্যে সবচেয়ে সফল বোলার অধিনায়ক মাশরাফি। ১০ ওভার বল করে ৪৯ রান দিয়ে তিন উইকেট নিয়েছেন। কিপ্টে বোলিং করেছেন সাকিব আল হাসান। ১০ ওভার বল করে মাত্র ৩৩ রান দিয়ে নিয়েছেন ১ উইকেট।

সবচেয়ে খরুচে বোলার ছিলেন মোস্তাফিজ। ১০ ওভারে ৮৪ রান দিয়ে নিয়েছেন দুই উইকেট। এ ছাড়া সাইফুদ্দিন দুটি ও মেহেদি মিরাজ নেন একটি করে উইকেট।

ফাস্ট বোলার রুবেল হোসেনকে ছাড়াই সাজানো হয়েছে টাইগার একাদশ। দলে আছেন ইনজুরি থেকে ফেরা মোস্তাফিজুর রহমান। সৌম্য সরকার থাকলেও একাদশে জায়গা হয়নি লিটন দাসের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com