,
সংবাদ শিরোনাম :
» « দেখিয়ে দাও তুমি কেন এক নম্বর, সাকিবকে রোডস» « অবশেষে ধ্যান ভেঙে গুহা ছাড়লেন মোদি» « যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে উত্তেজনার মধ্যে বেইজিংয়ে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী» « বাগেরহাটে বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা, নিহত ৫» « জ্যান্ত কবর দেয়া শিশুকে মাটি খুঁড়ে উদ্ধার করলো কুকুর» « রাজধানীতে পৃথক অভিযানে অজ্ঞানপার্টির ২৩ সদস্য আটক» « আয়ারল্যান্ডকে উড়িয়ে বাংলাদেশের ফাইনাল ‘প্রস্তুতি’» « ময়মনসিংহ মেডিক্যালের ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি, ফটকে তালা ঝুলিয়ে শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ» « দেশের পথে ওবায়দুল কাদের» « প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ১৭ অভিযুক্ত পাওয়া গেলো ছাত্রলীগের কমিটিতে

সরকারকে বিপর্যস্ত করতে কৃষকদের উসকানি দিয়ে ধানে আগুন দেওয়া হয়েছে: খাদ্যমন্ত্রী

 

 

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, ‘সরকারকে বিপর্যস্ত ও বিব্রত করতে একটি অশুভ চক্র কৃষকদের উসকানি দিয়ে ধানের জমিতে আগুন দিয়েছে। চক্রটি গণমাধ্যমকর্মীদের সেখানে বিশেষ উদ্দেশে নিয়ে গিয়ে তা ফলাও করে প্রচার করেছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু যেমন কৃষকদের নিয়ে ভাবতেন, তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারও কৃষকবান্ধব। তাই এসব অশুভ চক্রান্ত ও পাঁয়তারা কোনোদিনই সফল হবে না।’
বুধবার (১৫ মে) সকালে ‘অভ্যন্তরীণ বোরো সংগ্রহ অভিযান-২০১৯’র উদ্বোধন উপলক্ষে সিরাজগঞ্জ জেলা সদরের এলএসডি খাদ্য গুদামে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ দফতরের আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে খাদ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।
‘ধানের দাম না পেয়ে কৃষকরা ক্ষেতের ধান পুড়িয়ে দিলেন,’ সম্প্রতি গণমাধ্যমে প্রচারিত ও প্রকাশিত টাঙ্গাইলের কালিহাতি উপজেলার একটি সংবাদের উদ্ধৃতি টেনে খাদ্যমন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।
প্রান্তিক ও প্রকৃত কৃষক ছাড়া কোনও মিলার বা ঠিকাদারের কাছ থেকে এক ছটাকও ধান-চাল সংগ্রহ করা হবে না, এমন ষোষণা দিয়ে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সরকারি দলের লোকজনের পক্ষ থেকে কোনও ধরনের ঝামেলা নয় বরং কৃষকদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিশ্চিত করতে তারা প্রতিনিয়ত পাহাড়া দেবেন, এটিই আমি আশা করবো’ প্রান্তিক ও প্রকৃত কৃষক বা চাষি ছাড়া কোনও চক্রের কাছ থেকে স্থানীয় খাদ্যবিভাগ বা কোনও চক্র ধান ও চাল কেনা বা সংগ্রহ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তিনি জেলা ও উপজেলা প্রশাসনসহ পুলিশ বাহিনীর প্রতি কড়া নির্দেশনা দেন।
জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ইফতেখার উদ্দিন শামিম, পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী, চেম্বার প্রেসিডেন্ট আবু ইউসুফ সূর্য্য, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা অ্যাড. কে.এম .হোসেন আলী হাসান, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান রিয়াজ উদ্দিনসহ অনেকেই বক্তব্য রাখেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP2FB Auto Publish Powered By : XYZScripts.com