জনবল সংকটে ভুগছে লোহাগাড়ার ট্রাফিক বিভাগ

0 ১০৪
লোহাগাড়া প্রতিনিধিঃ-
দক্ষিণ চট্টগ্রামের অন্যতম বৃহত্তম ও বাণিজ্যিক উপজেলা লোহাগাড়া।উপজেলার একমাত্র ব্যস্ততম এলাকা আমিরাবাদ স্টেশন।প্রায় প্রত্যেকটি ব্যাংক-বীমার শাখা রয়েছে এখানে।রয়েছে শপিংমল ও মানবিক সেবাদানকারী হাসপাতালসহ একাধিক প্রতিষ্ঠান।লোহাগাড়া উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের জনসাধারণের দৈনন্দিন প্রয়োজনের একমাত্র গন্তব্য এই আমিরাবাদ বটতলী শহর।
চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক এই স্টেশনের মধ্য দিয়ে যাওয়ায় প্রতিদিন অসংখ্য যানবাহনের চাপ রয়েছে এই মহাসড়কটিতে।সেই সাথে যোগ হয়েছে দরবেশ হাট ডিসি সড়ক,আমিরাবাদ স্কুল রোড,আলুরঘাট রোড এর মতো ৫ টি ব্যস্ততম সড়ক।তীব্র জনবল সংকট হওয়ায় বাড়তি যানবাহনের চাপ সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে লোহাগাড়ার ট্রাফিক বিভাগ।
দুই লেনের এই মহাসড়কটিতে ট্রাফিক নজরদারির অভাবে যত্রসত্র  গাড়ি পার্কিং ও নিয়মবহির্ভূতভাবে নির্বিঘ্নে যাত্রী ওঠানামা হরহামেশায় চলছে। ফলে,প্রতিদিন কারণে-অকারণে মুহুর্তের মধ্যেই সৃষ্টি হচ্ছে দীর্ঘ যানজট।যানজটের মধ্যেই সংযোগ সড়ক থেকে তিন চাকার সিএনজিচালিত ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা মহাসড়কে ওঠে আগুনে ঘি ঢালে।
সূত্রমতে,যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে স্কুলরোড়,দরবেশহাট রোড়,আলুরঘাট রোড়,কাঁচা বাজার,মা ও শিশু হাসপাতাল মোড়সহ মোট ৫টি পয়েন্টে যেখানে ৬জন ট্রাফিক পুলিশ কনস্টেবল দরকার সেখানে বর্তমানে রয়েছে মাত্র দুইজন।অতিরিক্ত জনবলের চাহিদা থাকলেও,তা এখনো পূরণ হয়নি।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে টিআই(প্রশাসন),চট্টগ্রাম জেলার পরিদর্শক মোঃ আরিফুর রহমান বলেন,উপজেলায় চাহিদা অনুসারে জনবল বাড়ানোর চেষ্ঠা চলছে।যতদ্রুত সম্ভব ট্রাফিক পুলিশ নিয়োগ দেওয়া হবে।
যানজট নিরসনে দ্রুত কার্যকর প্রদক্ষেপ গ্রহণ করার দাবী জানিয়েছেন জনসাধারণ।তাছাড়া করোনার কারণে এখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ।সংকট বিদ্যমান অবস্থায় শিক্ষা কার্যক্রম চালু হলে উপজেলার কয়েকলাখ জনসাধারণ ও হাসপাতালগামী রোগীর পাশাপাশি শতাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের হাজার হাজার শিক্ষার্থীকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হবে বলে মনে করেন লোহাগাড়ার সচেতন মহল।
0 0 vote
Article Rating
আরও পড়ুন
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x