ট্রাম্পকে কঠোর হুঁশিয়ারি ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

ট্রাম্পকে কঠোর হুঁশিয়ারি ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর। বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে আগুন নিয়ে খেলার ব্যাপারে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ। তিনি সতর্ক করে বলেন, আগুন নিয়ে খেললে আমাদের প্রত্যুত্তর হবে অতি কঠোর।

নিজের অফিসিয়াল টুইটার পেজে প্রকাশিত এক পোস্টে জাভেদ জারিফ লিখেছেন, ইরাক থেকে পাওয়া গোয়েন্দা তথ্যে জানা গেছে ইসরায়েল ইরাকে মার্কিন অবস্থানে এমনভাবে হামলা চালানোর ষড়যন্ত্র করছে যাতে তার দোষ ইরানের ঘাড়ে চাপিয়ে দিয়ে বিদায় বেলায় ট্রাম্পকে একটি বানোয়াট যুদ্ধে জড়ানো যায়।

ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মার্কিন প্রেসিডেন্টকে উদ্দেশ করে লিখেছেন, ‘আপনাকে (ট্রাম্প) পাতানো ফাঁদের ব্যাপারে সাবধান থাকতে হবে। আগুন নিয়ে যে কোনো খেলার কঠোর জবাব দেয়া হবে। বিশেষ করে আপনার ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের বিরুদ্ধে জবাব হবে ভয়ঙ্কর।’

এর আগে মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ গত বৃহস্পতিবার মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন সেনাদের উসকানিমূলক তৎপরতার ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়ে এক টুইট বার্তায় লিখেছিলেন, ‘ইরান যুদ্ধ না চাইলেও নিজের জনগণ, নিরাপত্তা ও জাতীয় স্বার্থ রক্ষা করতে এক মুহূর্তও দেরি করবে না।’ তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস মোকাবিলা করার পরিবর্তে ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার মিত্ররা শত শত কোটি ডলার খরচ করে মধ্যপ্রাচ্যে বি-৫২ বোমারু বিমান ও সাবমেরিন পাঠিয়েছে।

ইরানের কুদস ফোর্সের সাবেক কমান্ডার লে. জেনারেল কাসেম সোলাইমানির হত্যাকাণ্ডের এক বছর পূর্তিকে সামনে রেখে সম্প্রতি ওয়াশিংটন ও তেহরানের মধ্যে উত্তেজনা বেড়ে গেছে। গত বুধবার আমেরিকার পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম দু’টি বি-৫২ বোমারু বিমান মধ্যপ্রাচ্যের আকাশে টহল দিয়ে আবার আমেরিকায় ফিরে গেছে। ওয়াশিংটন ঘোষণা করেছে, ইরানকে সতর্ক করার জন্য এ পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।

এছাড়া, গত সপ্তাহে পরমাণু শক্তিচালিত একটি মার্কিন সাবমেরিন পারস্য উপসাগরে অনুপ্রবেশ করেছে। যদিও গতকাল মার্কিন বিমানবাহী রণতরী নিমিতজ ও এর সহযোগী যুদ্ধজাহাজের বহর এ অঞ্চল থেকে ফিরিয়ে নেয়া হবে বলে জানিয়েছে পেন্টাগন।

এদিকে, ইরান তাদের ইউরেনিয়ামের মজুত ২০ গুণ বাড়াতে চাচ্ছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। সংস্থাটির পারমাণবিক নজরদারি সংস্থা এই ঘটনাকে এখন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক পারমাণবিক চুক্তির সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য লঙ্ঘন বলে উল্লেখ করেছে। এখন পর্যন্ত ইউরেনিয়ামের মজুত ১২ গুণের বেশি বৃদ্ধি করেছে ইরান।

 

0 0 vote
Article Rating
0
Would love your thoughts, please comment.x
()
x